সিনিয়রদের সাথে কোনো সমস্যা ছিল না, হবেও না


খেলা ডেস্ক

আরটিএনএন

ঢাকা: ২০১৪ সাল থেকে ২০১৭ পর্যন্ত প্রায় সাড়ে তিন বছর বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের হেড কোচের দায়িত্ব পালন করেছেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। সেই সময় বেশ কিছু সাফল্য পেয়েছে বাংলাদেশ। যদিও শ্রীলংকান এই কোচের বিদায়বেলাটা সুখকর ছিল না। সিনিয়র ক্রিকেটারদের সাথে হাথুরুসিংহের মতের অমিলের গুঞ্জন শোনা যেত। দ্বিতীয় মেয়াদে ফের বাংলাদেশ দলের কোচের দায়িত্ব নিয়ে হাথুরু বললেন, বাংলাদেশের সিনিয়র ক্রিকেটারদের সাথে আগেও তার কোনো সমস্যা ছিল না, এখনো হবে না।

আজ বুধবার মিরপুর শেরেবাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামের প্রেস কনফারেন্স রুমে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে হাজির হন হাথুরুসিংহে। এ সময়ই এসব নিয়ে কথা বলেন তিনি।

নিজ দেশ শ্রীলংকা থেকে আর্থিকভাবে লোভনীয় প্রস্তাব পেয়ে হঠাৎ-ই ছেড়ে দিয়েছিলেন বাংলাদেশের কোচের দায়িত্ব। সেই সময় বোর্ডের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হলেও উত্তর দেননি হাথুরু। শোনা যায়, টি-টোয়েন্টি থেকে মাশরাফি বিন মুর্তজার আগেভাগে অবসর নেয়াতে বড় ভূমিকা ছিল হাথুরুসিংহের। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকেও একটা সময় অনেকটা সাইডবেঞ্চে রেখেছিলেন। সাকিব আল হাসানের সাথেও হাথুরুর ঝামেলার খবর রটেছিল। হাথুরু অবশ্য এসবই মিথ্যা রটনা বলে উড়িয়ে দিয়েছেন।

সিনিয়রদের সাথে ঝামেলার প্রশ্ন উঠলে তিনি বলেন, ‘সিনিয়রদের সাথে কখনো আমার ঝামেলা ছিল বলে মনে করি না। আগেও কখনো অ্যাডজাস্টমেন্টে আমার সমস্যা হয়নি। এবারো হবে না। সবার নজর এখন দলের ভালোর দিকে। আমার চ্যালেঞ্জ ছিল দলের ভালোর দিকে নজর রাখা।’

২০১৭ সালের দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের মাঝপথে বাংলাদেশ কোচের পদ থেকে পদত্যাগ করেছিলেন হাথুরুসিংহে। সেই সফরে সাকিব আল হাসান টেস্ট থেকে ছুটি নেয়ায় সাকিবের নিবেদন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। এই বিষয়টিও স্বীকার করতে চাইলেন না হাথুরু। বলেছেন, এই আলোচনা তিনি প্রথম শুনলেন, ‘এটা তো আমার কাছে একেবারেই নতুন (খবর)। আমি তো এমন কিছু বলিনি।’